মাওলানা সাহেব এর বুদ্ধি

আমাদের ইসলাম জোকস মজার গল্প হক কথা


দেওবন্দ মাদরাসা সূচনাকালীন সময়ের ঘটনা। ভারতবর্ষে বেশ আন্দোলন চলছিল। দেওবন্দ মাদরাসার নিরপরাধ এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে অন্যায়ভাবে অহেতুক সরকার বাদী মামলা হলো। পুলিশ মাওলানা সাহেবকে গ্রেফতার করে নিয়ে গেল। মাওলানা সাহেবকের হাজির করা হলো আদালতে। সরকারী উকিল দাড়িয়ে গেলেন জেরা করার জন্য। জজ সাহেব মাওলানা সাহেবকে জিজ্ঞাসা করলেন মোল্লা আপনার উকিলর কোথায় ? মাওলানা সাহেব বললেন আমি মাদরাসার একজন নগন্য শিক্ষক মাত্র। আমার উকিল নেওয়ার মতো টাকা-পয়সা নেই, তাই ভেবেছি আমি নিজে উকিল সাহেব এর সাথে জেরা করবো। জজ সাহেব সরকারী উকিলকে বললেন তাহলে জেরা শুরু হউক। উকিল জজ সাহেব এর দৃষ্টি আকর্ষণ করে মাওলানা সাহেবকে বললেন, আমি আপনার সাথেই জেরা করতে প্রস্তুত তবে আমার এশটি অনুরোধ থাকবে আপনার কাছে , আমার অনুরোধ রাখতে হবে। মাওলানা সাহেব বললেন ঠিক আছে আপনার অনুরোধটা বলুন। উকিল বললেন, আপনারা মোল্লা মানুষ একটা কথা বললে বহু ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ করেন, মোল্লাদের প্যাঁচে আমাদের অস্থির হয়ে যেতে হয়। সুতরাং আমার অনুরোধ কোন ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ করবে না কেবল আমার কথার উত্তর দিবেন হ্যাঁ না এর মাধ্যমে। মাওলা বললেন আমি আপনার আবদার রাখবো,তবে প্রথমে আমি আপনাকে একটা প্রশ্ন করবো, আপনি কেবল হ্যাঁ না এর মাধ্যমে উত্তর দিয়ে জেরা শুরু করবেন। এর পর থেকে আমি আপনার সব প্রশ্নের উত্তর হ্যাঁ না এর মাধ্যমেই দিব। উকিল ভাবলেন মোল্লা আর কি প্রশ্ন করবে আমি ঝট পট উত্তর দিয়ে জেরা শুরু করবো। জজ সাহেব তাদের কথপোকথন শুনছিলেন। জজ সাহেব অনুমতি দিলেন। মাওলানা সাহেব উকিলকে প্রশ্ন করলেন, আপনার বাবা যে আগে মানুষের জুতা চুরি করতেন সেই অভ্যাসকি এখনও আছে নাকি ছেড়ে দিয়েছেন? হ্যাঁ বা না দিয়ে উত্তর দিন। মাওলানা সাহেব এর এমন প্রশ্নে উকিল থ খেয়ে গেলেন। উত্তর দেওয়ার কোন পথ খুজে পেলেন না। মাওলানা সাহেব এর তরিৎ বুদ্ধিতে উকিল ও জজ দুজনেই হতবাক। তাদের দুজনের চোখেই পানি জমে গেল। জজ সাহেব বুজতে পেরে উকিলকে বললেন মোল্লাকে তাড়া তাড়ি মুক্তি দেন, নয়তো ঝামেলায় পড়বেন। মাওলানা সাহেব আপন বুদ্ধিতে বে-কসুর খালাস পেলেন।

উপদেশ: আলেমদেরকে নির্বোধ ভাবার কোন সুযোগ নেই। আলেমগন ঐশী বুদ্ধির অধিকারী। যারা আলেমদেরকে নির্বোধ বা বোকা মনে করে আসলে তারা নিজেই বোকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.