মুরগি আকৃতির ডাইনোসরের বসবাস ছিল ব্রাজিলে!

ভিন্ন খবর

Day

Night


এক বিশেষ প্রজাতির ডাইনোসরের জীবাশ্মের সন্ধান পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। মুরগির আকারের এ ডাইনোসরের মধ্যে এমন কিছু বৈশিষ্ট্য দেখা গেছে যা আগে কখনো দেখা যায়নি। 

বিজ্ঞানীদের মতে, প্রায় ১১ কোটি বছর আগে পৃথিবীতে এই ডাইনোসরের অস্তিত্ব ছিল।

ডাইনোসরটির কিছু অস্বাভাবিক বৈশিষ্ট্য ছিল। ডাইনোসরের পিছনে চুলের লম্বা কেশর ছিল, কাঁধে ছিল ১৫ সেন্টি মিটারের মত লম্বা সূঁচের মত অদ্ভুত জিনিস।

জার্মানির ‘স্টেট মিউজিয়াম অফ ন্যাচরাল হিস্ট্রি’তে সংরক্ষিত জীবাশ্ম পরীক্ষা করার সময় আন্তর্জাতিক এক গবেষক দল নতুন প্রজাতির এই ডাইনোসরটি সন্ধান পান। এই ডাইনোসরের জীবাশ্ম ব্রাজিলের উত্তর-পূর্বাঞ্চল থেকে সংগ্রহ করা হয়েছিল।

গবেষকদের এই পর্যবেক্ষনটি প্রকাশিত হয় বৈজ্ঞানিক সাময়িকী ‘ক্রিটেসিয়াস রিসার্চ’ এ।

গবেষণায় বলা হয়, ডাইনোসরের দুটি পা ছিল এবং তার দৈর্ঘ্য ছিল প্রায় ৫০ সেন্টি মিটারের মত। ডাইনোসরটিকে একটি মোরগের মত দেখা যেত। জীবাশ্ম থেকে জানা না গেলেও ধারণা করা হচ্ছে এই প্রজাতির ডাইনোসর বর্ণময় ছিল। 

এই গবেষণাটি প্রকাশে সহায়তা করেছেন ইংল্যান্ডের পোর্টসমাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের জীবাণুবিদ্যার অধ্যাপক ডেভিড মার্টিল। অদ্ভুত প্রজাতির ডাইনোসরটি সম্পর্কে তিনি বলেন, “কাধে যে সূঁচের মত বস্তু রয়েছে তা প্রকৃতিতে আগে আমি কখনও দেখিনি। অনেক ধরণের ব্যতিক্রম ডাইনোসর ছিল। কিন্তু এটি ছিল সবথেকে ব্যতিক্রম।”

গবেষকদের মতে, সূঁচের মত এই জিনিসগুলো দিয়ে শত্রুদের ভয় দেখাতো এই প্রজাতির ডাইনোসররা। সূত্র: কালের কণ্ঠ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.