রোজা অবস্থায় ইনহেলার, ইনজেকশন,ইনসুলিন ব্যবহার বিধান

আমাদের ইসলাম মাসায়েল শিক্ষা

রোজা অবস্থায় ইনহেলার ব্যবহারের বিধান

শ্বাসকষ্ট দূর করার জন্য মুখের ভেতরে ইনহেলার স্প্রে করা হয়। এতে যে জায়গায় শ্বাসরুদ্ধ হয় জায়গাটি প্রশস্ত হয়ে যায়। ফলে শ্বাস কষ্ট থাকে না।

ওষুধটি যদিও স্প্রে করার সময় গ্যাসের মতো দেখা যায়। কিন্তু বাস্তবিক পক্ষে তা দেহবিশিষ্ট তরল ওষুধ। অতএব মুখের অভ্যন্তরে ইনহেলার স্প্রে করার দ্বারা রোজা ভেঙে যাবে। তাই রোজা অবস্থায় ইনহেলার ব্যবহার করবে না।

তবে কারও অবস্থা যদি এমন মারাত্মক হয় যে ইনহেলার নেয়া ব্যতীত ইফতার পর্যন্ত অপেক্ষা করা কষ্টকর হয়ে পড়ে, তা হলে সে ইনহেলার ব্যবহার করবে এবং পরবর্তী সময় ১টি রোজা কাজা করে নিবে।কাফফারা (৬০ রোজা) আদায় করতে হবেনা।

আর কাজা করা সম্ভব না হলে ফিদিয়া আদায় করবে। আর যদি ইনহেলারের বিকল্প কোনো ইনজেকশন থাকে, তা হলে তখন ইনজেকশনের মাধ্যমে চিকিৎসা করবে।

রোজ অবস্থায় ইনজেকশন ও ইনসুলিন নেওয়ার বিধান

শারীরিক শক্তি বৃদ্ধি ছাড়া অন্য যে কোনো কারণে ইনজেকশন নিলে রোজা ভঙ্গ হবে না। চাই তা মাংসে নেয়া হোক বা রগে। কারণ ইনজেকশনের সাহায্যে দেহের অভ্যন্তরে প্রবেশকৃত ওষুধ মাংস বা রগের মাধ্যমেই প্রবেশ করানো হয়ে থাকে, যা অস্বাভাবিক প্রবেশপথ, তাই এটি রোজা ভঙ্গের গ্রহণযোগ্য কারণ নয়।ইনজেকশনের মতো ডায়বেটিস রোগীদের ইনসুলিন ব্যবহারেও রোজা ভঙ্গ হবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.